https://www.babycontents.com/ কীভাবে আপনার শিশুর শরীর ম্যাসেজ করবেন? শিশুর শরীর ম্যাসেজ টিপস

কীভাবে আপনার শিশুর শরীর ম্যাসেজ করবেন? শিশুর শরীর ম্যাসেজ টিপস

আপনি কী জানেন শিশুর শরীর ম্যাসেজের উপকারীতা কী? শারীরিক এবং মানসিকভাবে সুস্থ রাখার জন্য শিশুরদের শরীর ম্যাসেজ করা দরকার। শিশুর শরীর ম্যাসেজ করলে তাদের প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যায়, পেশী শক্তি বিকাশে সহায়তা করে এবং তাদের স্ট্রেস বা দুশ্চিন্তা হ্রাস করে।


আপনার সন্তানের জন্মের পরে প্রথম সপ্তাহে আপনি আলতোভাবে তার শরীর ম্যাসেজ শুরু করতে পারেন। শিশুর শরীর ম্যাসেজ করার জন্য সবার আগে শিশুর সাথে ভালো বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ করতে হবে। কেননা শিশুরা সহজে তাদের শরীরে হাত লাগাতে দেয় না। 

আপনার শিশুকে কীভাবে এবং কখন ম্যাসেজ করবেন তা জেনে নেওয়া আপনার অতীব জরুরী। তাই এই বেবি কনটেন্টস ডট কম থেকে সর্বাধিক সুবিধা এবং জ্ঞান পেতে আমরা আপনাকে সর্বত্র সহায়তা করব। 

কীভাবে আপনার শিশুর শরীর ম্যাসেজ করবেন?

এখন আপনারা জানবেন শিশুর শরীর ম্যাসেজের কার্যকরী কিছু টিপসঃ

শিশুর শরীর ম্যাসেজের জন্য শিশুকে আনন্দদায়ক করে তুলুনঃ  শিশুর শরীর ম্যাসেজের জন্য শিশুকে আনন্দদায়ক করে তোলা জরুরী কেননা কান্নারত অবস্থায়  আপনি কখোনই শিশুর শরীর ম্যাসেজ করতে পারবেন না। হালকা গরম ঘরে শিশুর শরীর ম্যাসেজ করার পরিকল্পনা করুন। এটা নিশ্চিত করা আপনার জরুরী যে ঘরের তাপমাত্রা যেন শীতল না থাকে। শিশুর শরীর ম্যাসজের জন্য আপনি নরম কাপড় বা তোয়ালে ব্যবহার করতে পারেন। আপনি যদি চান তাহলে ডায়াপারও ব্যবহার করতে পারেন।

তেল ব্যবহার করুনঃ

আপনি যদি ম্যাসেজের জন্য তেল ব্যবহার করতে চান তবে জলপাই তেল, অ্যাভোকাডো তেল, বা অন্য কোনও ভোজ্যতেল বা খাবার তেলঃ- যেমন সরিষার তেল ব্যবহার করতে পারেন। যেহেতু শিশু তার হাতের আঙ্গুলগুলি মুখে দিয়ে চাটবেই। সেজন্য খনিজ তেল ব্যবহার করবেন না, কারণ খনিজ তেল সহজে শিশুর পেটে হজম হয় না বরং এতে শিশুর ক্ষতি হয়।

আস্তে-আস্তে শিশুর শরীর ম্যাসেজ করবেনঃ

আপনি কখোনই একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির ন্যায় পূর্ণশক্তি দিয়ে আপনার শিশুর শরীর ম্যাসেজ করবেন না। কেননা শিশুদের শরীর অনেক নরম এবং হাড়গুলি হালকা হয়ে থাকে। এক্ষেতে আপনাকে শিশুর শরীর আলতো করে ম্যাসেজ করতে হবে। আপনি শিশুর পিঠ, পেট, বাহু, পা, মাথা এবং ঘাড় ম্যাসেজ করতে পারেন। 

একদিকে ম্যাসেজ করুনঃ

শিশুর শরীর ম্যাসেজের সাধারণ অনুশীলন হলো শিশুর স্কিন বা ত্বকের দিক থেকে তার হার্ট বা হৃদয়ের দিকে ম্যাসেজ করা। এটি শিশুর শরীরে একটি শান্ত প্রভাব ফেলে এবং আপনি যদি চান আপনার শিশু সহজে ঘুমিয়ে পড়ুক তাহলে এই ম্যাসেজ কৌশলটি আপনার জন্য দারুণ কাজে দেবে।  

শিশুর যেই অঙ্গগুলো ম্যাসেজ করবেনঃ 

শিশুর পা এবং পায়ের পাতা মেসেজ করুনঃ  আপনার হাত দিয়ে ভালোভাবে শিশুর পা ধরুন এবং ধীরে ধীরে শিশুর উরু থেকে নিচের দিকে পায়ের পাতা, পায়ের আঙ্গুলগুলি ম্যাসেজ করুন। আপনি শিশুর শরীরের যে কোনও অংশ দিয়ে শুরু করতে পারেন। যেমনঃ ডান বা বাম পা থেকে। মনে রাখবেন; যখন শিশুর হাঁটু বাঁকানোর চেষ্টা করবেন অবশ্যই সেটা আস্তে আস্তে করবেন।

শিশুর বুক এবং পেট ম্যাসেজ করুনঃ 

শিশুর শরীরে ম্যাসেজের সময় বুক এবং পেট এই অংশটুকু সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে। বুক থেকে পেটের দিকে এবং পেট থেকে বুকের দিকে আস্তে-আস্তে ম্যাসেজ করতে  থাকুন এতে শিশুর শরীরের শান্তভাব দেখতে পাবেন। তবে মনে রাখবেন; শিশুর শরীরে ম্যাসেজের সময় তাদের পেটে যেন সুড়সুড়ি না লাগে। 

শিশুর মাথা এবং মুখ ম্যাসেজ করুনঃ

 শিশুর মাথা এবং মুখ ম্যাসেজ করার ক্ষেত্রে আপনার হাতের সব আঙ্গুলগুলি গোলাকার করে শিশুর মাথার চারদিকে দিয়ে ঘুরিয়ে নেবেন এবং সাথে মুখ ম্যাসেজ করবেন। মুখ ম্যাসেজের সময় আপনি শিশুর গলা, ঠোঁট আলতো করে ম্যাসেজ করতে পারেন।


শিশুর শরীরের পিছন দিক পিঠ ম্যাসেজ  করুনঃ

 শিশুর শরীরের পিছন দিক বা পিঠ ম্যাসেজ করতে শিশুকে উপুড় করে শুইয়ে দিন যাতে তারা পিঠ ম্যাসেজ করতে দেয়। এবার আপনার হাতের আঙ্গুলগুলি আলতো করে শিশুর কাধ থেকে শুরু করে পিঠের নিচের দিকে ম্যাসেজ করতে থাকুন। এক্ষেত্রে অবশ্যই মনে রাখবেন; পিঠ ম্যাসেজের সময় প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির মতো শক্তি প্রয়োগ করা যাবে না।
Post a Comment (0)
Previous Post Next Post